আলোচ্য বিষয়ঃ
থিম এর কাজ কি?
থিম কিভাবে তৈরি হয়? থিমের আবশ্যিক ফাইল গুলি কি কি?
থিম এবং প্লাগিন এর পার্থক্য কি?
ওয়ার্ড প্রেস অরগ সাইট এর থিম সম্পর্কে …
এবার শুরুর করা যাক তবে…

একটি ওয়ার্ড প্রেস থিম আপনার ওয়েবসাইট এর বিন্যস( লে-আউট) , রঙ এবং ডিজাইন পাল্টে দিতে পারে। থিম পরিবর্তনের সাথে সাথে একটি সাইট এর সমূদয় দৃশ্যমান রূপ পাল্টে যায় যা একজন দর্শক ওয়েব ব্রাউজার এর মাধ্যমে দেখেন। ওয়ার্ড প্রেস এর হাজার হাজার থিম আছে যার প্রত্যেকটি যেকোনো ওয়েবসাইট কে একেবারে আলাদা রূপে উপস্থাপন করতে পারে।
থিম এর কাজ কি?
থিম মূলত ওয়ার্ড প্রেস এর ডাটাবেস থেকে ডাটা সংগ্রহ করে ব্রাউজারের মাধ্যমে দর্শকের জন্যে উপস্থাপন করে। যখন আপনি থিম তৈরি করছেন তখন আসলে আপনি কিভাবে দর্শকের সামনে ডাটা উপস্থাপন করতে চাইছেন তার ব্যাপারে নির্দেশনা তৈরি করেন। থিম তৈরি করার ব্যাপারে অনেক ওয়ার্ড প্রেস অনেক সুবিধা তৈরি করে রেখেছে,

যেমনঃ

  • আপনার সাইটে লে-আউট ইচ্ছে মত তৈরি করতে পারেন, লে-আউট হতে পারে স্ট্যাটিক অথবা লিকুইড, এক কলামের বা একাধিক কলামের, এটি হতেপারে গ্রিড বিভক্ত অথবা ডিভাইস রেস্পন্সিভ।
  • আপনার ওয়েবসাইট এর বিষয় বস্তু কি ভাবে এবং ঠিক কোন জায়গায় উপস্থাপিত হবে সেই নির্দেশনা দিতে পারেন।
  • আপনি ঠিক করে দিতে পারেন আপনার সাইট এর বিষয় বস্তু কিংবা কোন লেখা দর্শকের কোন বিশেষ কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে বা ফল হিসেবে বিশেষ ভাবে উপস্থাপিত হবে, অথবা কোন বিশেষ ডিভাইস এ বিশেষ রূপে দেখানো হবে।
  • আপনি পছন্দ মত টাইপগ্রাফি যুক্ত করে আপনার সাইটের এর বিষয় বস্তুকে ফুটিয়ে তুলতে পারেন।
  • আপনি নিজস্ব CSS এর সাহায্যে ইচ্ছে মত ডিজাইন এর দৃশ্যমান রূপ তৈরি করে নিতে পারেন।
  • মিডিয়া ব্যাবহারের মাধ্যমে পছন্দ মত ছবি, ভিডিও যুক্ত করতে পারেন।
    ওয়ার্ড প্রেস থিম প্রকৃতপক্ষে অনেক শক্তিশালী, কিন্তু একটি ভাল ওয়েবসাইট এর রঙ কিংবা ডিজাইনের চাইতে এর বিষয় বস্তুর সাথে দর্শক কতোটুকু সম্পৃক্ত হতে পারছে তার বিবেচনায় বিবেচ্য হয়, মূলত সাইটের বিষয় বস্তুর উপস্থাপনার সাথে দর্শকের সম্পৃক্ত হওয়ার প্রবণতাই এর সফলতার মান নির্ণায়ক।

থিম কিভাবে তৈরি হয়?
মূলত ওয়ার্ড প্রেস সাইট অনেকগুলি ফাইল এর সম্মিলিত উপস্থাপনায় দৃশ্যমান হয়ে থাকে, আলাদা আলাদা ফাইল গুলি বিশেষ উপায়ে ব্রাউজারের মাধ্যমে নির্দেশিত উপায়ে উপস্থাপিত হয়।
থিমের আবশ্যিক ফাইল গুলি কি কি?
ওয়ার্ড প্রেস থিমে নুন্যতম দুইটি ফাইলের প্রয়োজন হয়
১। index.php ২। style.css
যদিও এই দুইটি ফাইল দিয়ে ওয়ার্ড প্রেস থিম তৈরি করা চলে তথাপি সাধারনত নিন্মুক্ত ফাইল গুলি ওয়ার্ড প্রেস থিম এর সাথে থাকে

  • PHP ফাইল template files এবং theme functions
  • Localization files
  • CSS files
  • Graphics
  • JavaScript
  • Text –সাধরনত লাইসেন্সএর তথ্য, থিম ব্যাবহারের নির্দেশনা সনবলিত readme.txt অথবা changelog ফাইল

থিম এবং প্লাগিন এর পার্থক্য কি? 

থিম ও প্লাগিন এর কার্যকারিতা  পরস্পরের পরিপূরক, তবে, সর্বোত্তম কার্যাভ্যাস হিসেবে বলা যায় :

  •  থিম মূলত ওয়েব সাইটের বিষয়বস্তুর উপস্থাপনা নিয়ন্ত্রণ করে
  • আর প্লাগইন ওয়ার্ডপ্রেস সাইট এর ব্যবহার এবং কার্যকারিতা নিয়ন্ত্রণ করতে ব্যবহৃত হয়

সাধারনত থিমে  জটিল কোন কার্যকারিতা বা ফিচার যোগ করা উচিত নয়,  কেন? এতে ব্যবহারকারী কোন কারনে তাদের থিম পরিবর্তন করলে তার ওয়েব সাইটের থিম আরোপিত  কারজকারিতা বা ফিচার সমূহের কর্মক্ষমতা বিকল হয়ে যেতে পারে।

ধরুন, আপনি একটি পোর্টফলিও থিম তৈরি করেছেন, আর তা কোন ব্যাবহার কারি তার সাইটে ব্যাবহার করল, কিন্তু কিছুদিন পরে অন্য থিমে যেতে চাইল, যাতে পোর্টফলিও সাইটের জন্যে অন্য কার্যকারীতা  যুক্ত আছে, তখন নিশ্চয়ই ব্যাবহার কারি কিছু তথ্য হারাবেন এবং জটিলতায় পরবেন ।

একারনে ওই বিশেষ কার্যকারিতা  বা ফাংশনালিটি আলাদা ভাবে প্লাগিন আকারে তৈরি করলে  তা ব্যাবহার কারি নিজের সুবিধা মত যুক্ত বা বিযুক্ত করে  সহজে নিজের প্রয়োজন মিঠাতে পারেন।

প্লাগিন এর সাহায্যে ফাংশনালিটি গুলিকে আলাদা ভাবে তৈরি করলে ব্যবহারকারীর কাছে  থিমের গ্রহন যোগ্যতা যেমন বারে তেমনি পছন্দ মত ফাংশনালিটি যুক্ত কিংবা বিযুক্ত করার সুবিধা থাকাতে অনেক বেশি ব্যাবহার উপযোগী।

নোটঃ মনে রাখবেন থিম তৈরির ক্ষেত্রে সর্বোত্তম কার্যাভ্যাস হল  সাইটের যাবতীয় ফাংশনালিটি মূল থিম থেকে আলাদা ভাবে প্লুগিন আকারে তৈরি করে নেওয়া, এবং থিমকে যেকোনো প্লুগিন এর সাথে যুক্ত করার মত করে তৈরি করা।

ওয়ার্ড প্রেস অরগ সাইট এর থিম সম্পর্কে … 

  • ওয়ার্ড প্রেস থিম ডাউনলোড করার সব চাইতে নিরাপদ স্থান হচ্ছে  WordPress.org ।
  • Themes Directory এর সকল থিম (   theme review guidelines) সঠিক ভাবে অনুসরনের মাধ্যমে  খুব নীবির ভাবে পর্যালোচনা/ রিভিউ  করা হয়  যাতে থিমের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যায়।
  • আপনি নিজের প্রয়োজনে থিম ডাউন লোড না করলেও বিশ্বের কাছে নিজের থিম ছড়িয়ে দিতে পারেন এই লিঙ্ক ( submit a theme to WordPress.org.) এর ওয়েব সাইটের মাধ্যমে

এবার শুরুর  করা যাক তবে… 

এখন আপনি জানেন থিম কি, সুতরাং  এখন মূল কাজ শুরু করা যাক।  যদি আপনি এখনো আপনার পি সি তে  পি এইছ পি ফাইল পড়ার জন্যে পরিবেশ তৈরি না করে থাকেন তবে set up your local development environment এই গাইড দেখে তা করে নিন। এখন আপনি কিছু ওয়ার্ড প্রেস থিম একটু ভাল ভাবে দেখে নিতে পারেন যা আপনার পরবর্তী পদক্ষেপে কাজে লাগবে, নয়তো  পরবর্তী লেখায় চলে আসুন আপনার প্রথম থিম তৈরি করতে।